সুভা গল্পের জ্ঞানমূলক প্রশ্ন ও উত্তর পিডিএফ- এস এস সি

সুভা গল্পের জ্ঞানমূলক প্রশ্ন উত্তর এই পোস্টে দেওয়া আছে। রবীন্দ্রনাথ ঠাকুর গল্পটি লিখেছেন। সুভা নামের একটি মেয়েকে কেন্দ্র করে গল্পটি লেখা হয়েছে। সুভা, গল্পে মেয়েটির নাম সুভাষিণী। সে কথা বলতে পারে না। মেয়েটির নাম যখন সুভাষিণী রাখা হইয়াছিল তখন কে জানিত সে বােবা হইবে। তার বাবা তাকে এই নাম রেখেছিলো। তার আরও দুইটি বোন আছে সুকেশিনী ও সুহাসিনী। সুভা গল্পের জ্ঞানমূলক প্রশ্ন গুলো নিচে থেকে সংগ্রহ করেনিন।

সুভা গল্পের জ্ঞানমূলক প্রশ্ন

এখানে সুভা গল্পের জ্ঞানমূলক প্রশ্নের উত্তর দেওয়া আছে। এই প্রশ্ন গুলো অনুশীলন করলে সৃজনশীল প্রশ্নের ক নাম্বার সম্পর্কে ধারনা পাবেন। এই রকম প্রশ্ন গুলো সৃজনশীল প্রশ্নের দেওয়া থাকে। তো যারা পড়তে চান বা সংগ্রহ করতে চান, নিচে থেকে প্রশ্ন গুলো দেখেনিন।

১। রবীন্দ্রনাথ ঠাকুরের ‘বনফুল’ কাব্য প্রকাশিত হয় তাঁর কত বছর বয়সে?
উত্তর : ১৫ বছর বয়সে রবীন্দ্রনাথ ঠাকুরের বনফুল’ কাব্য প্রকাশিত হয়।

২। রবীন্দ্রনাথ ঠাকুর কত সালে নােবেল পুরস্কার লাভ করেন?
উত্তর : রবীন্দ্রনাথ ঠাকুর ১৯১৩ সালে নােবেল পুরস্কার লাভ করেন।

৩। ছােট মেয়েটার নাম সুভাষিণী রাখা হয়েছিল কেন?
উত্তর : বড় দুই বােনের নামের সাথে মিলের অনুরােধে ছোট মেয়েটির নাম সুভাষিণী রাখা হয়েছিল।

৪। সুভার মা সুভাকে কীভাবে দেখতেন?
উত্তর : সুভার মা সুভাকে তার নিজের ত্রুটিম্বরূপ দেখতেন।

৫। গোঁসাইদের ছােট ছেলেটির নাম কী?
উত্তর : গোসাইদের ছােট ছেলেটির নাম প্রতাপ !

৬। ‘ঝিল্লিরব’ অর্থ কী?
উত্তর : ‘ঝিল্লিরব’ অর্থ ঝিঝি পােকার আওয়াজ বা শব্দে মুখর।

৭। প্রতাপের প্রধান শখ কী ছিল?
উত্তর : প্রতাপের প্রধান শখ ছিল ছিপ ফেলে মাছ ধরা।

৮। রবীন্দ্রনাথ ঠাকুরের পিতামহের নাম কী?
উত্তর : প্রিন্স দ্বারকানাথ ঠাকুর।

৯। কোন কাব্যের জন্য রবীন্দ্রনাথ ঠাকুর নােবেল পুরস্কার লাভ করেন?
উত্তর : গীতাঞ্জলি’ কাব্যের জন্য রবীন্দ্রনাথ ঠাকুর নােবেল পুরস্কার লাভ করেন।

১০। সুভাষিণীকে সবাই সংক্ষেপে কী নামে ডাকত?
উত্তর : সুভাষিণীকে সবাই সংক্ষেপে ‘সুভা’ নামে ডাকত।

১১। বাণীকন্ঠের বড় মেয়ে দুটির বিয়ে কীভাবে হয়েছে?
উত্তর : দস্তুরমতাে অনুসন্ধান ও অর্থব্যয়ে বাণীকন্ঠের বড় মেয়ে দুটির বিয়ে হয়েছে।

১২। ছােট মেয়েটি পিতা-মাতার কোন অনুভূতির মতাে বিরাজ করছিল?
উত্তর : ছােট মেয়েটি পিতা-মাতার নীরব হৃদয়ভারের মতাে বিরাজ করছিল।

১৩। মায়েরা মেয়েকে কিসের অংশরূপে দেখেন?
উত্তর : মায়েরা মেয়েকে নিজের অংশরূপে দেখেন।

১৪। মেয়ের কোনাে ত্রুটি থাকলে মায়েরা তা কীভাবে দেখেন?
উত্তর : মেয়ের কোনাে ত্রুটি থাকলে মায়েরা নিজের জুটি হিসেবে দেখেন।

১৫। সুভা কথা না বলতে পারলেও কী করতে পারত?
উত্তর : সুভা কথা না বলতে পারলেও অনুভব করতে পারত।

সুভা গল্পের সংক্ষিপ্ত প্রশ্ন ও উত্তর

১৬। সুভার পুরাে নাম কী?
উত্তর : সুভার পুরাে নাম সুভাষিণী।

১৭। সুভা কী মনে করত?
উত্তর : সুভা মনে করত তাকে সবাই ভুলে গেলে সে বাঁচে।

১৮। সুভা সবসময় কোন চেষ্টা করত?
উত্তর : সুভা সবসময় নিজেকে সবার কাছ থেকে গােপন করার চেষ্টা করত।

 ১৯। সুভা কোথায় বসে থাকত?
উত্তর : সুভা তেঁতুলতলায় বসে থাকত।

২০। এশীয়দের মধ্যে প্রথম সাহিত্যে নােবেল পুরস্কার লাভ করেন কে?
উত্তর : এশীয়দের মধ্যে রবীন্দ্রনাথ ঠাকুর প্রথম সাহিত্যে নােবেল পুরস্কার লাভ করেন।

২১। সুভাষিণীর বড় দুই বোনের নাম কী?
উত্তর: সুকেশিনী ও সুহাসিনী।

২২। সুভার ভাষাবিশিষ্ট জীব সঙ্গী কে?
উত্তর: সুভার ভাষাবিশিষ্ট জীব সঙ্গী প্রতাপ।

২৩।বাণীকন্ঠের ঘর কোথায়?
উত্তর: বাণীকন্ঠের ঘর নদীর একেবারে উপরে।

২৪। সুভা কোথায় বসে থাকত?
উত্তর: সুভা তেঁতুলতলায় বসে থাকত।

২৫। সুভার পুরো নাম কী?
উত্তর: সুভাষিনী।

২৬। সুভা অবসর পেলেই কোথায় গিয়ে বসে থাকত?
উত্তর: নদীতীরে।

২৭।গোয়ালের গাভী দুটি সুভার কে?
উত্তর: অন্তরঙ্গ বন্ধু।

২৮। ‘সুভা’ কী জাতীয় রচনা?
উত্তর: ‘সুভা’ ছোটগল্প জাতীয় রচনা।

২৯। রবীন্দ্রনাথ ঠাকুরের প্রথম কাব্যগ্রন্থের নাম কী?
উত্তর: ‘বনফুল’।

৩০।  মেয়ের কোনো ত্রুটি থাকলে মায়েরা তা কীভাবে দেখেন?
উত্তর: নিজের ত্রুটি হিসেবে দেখেন।

সুভা গল্পের ছোট প্রশ্নের উত্তর

৩১। বাণীকন্ঠ তিন মেয়ের মধ্যে কাকে বেশি ভালোবাসতেন?
উত্তর: তিনি সুভাকে বেশি ভালোবাসতেন।

৩২। সুভার মা কী জ্ঞান করে সুভার প্রতি বিরক্ত ছিলেন?
উত্তর: নিজের গর্ভের কলঙ্ক জ্ঞান করে সুভার ওপর তিনি বিরক্ত ছিলেন?

৩৩। সুভার বাবার নাম কী?
উত্তর: সুভার বাবার নাম বাণীকন্ঠ।

৩৪। বাণীকন্ঠের আর্থিক অবস্থা কেমন?
উত্তর: বাণীকন্ঠের আর্থিক অবস্থা সচ্ছল।

৩৫। গোঁসাইদের ছোট ছেলেটির নাম কী?
উত্তর: গোঁসাইদের ছোট ছেলেটির নাম প্রতাপ।

৩৬। ঝিল্লিরব’ অর্থ কী?
উত্তর: ‘ঝিল্লিরব’ অর্থ ঝিঁঝিঁ পোকার আওয়াজ বা শব্দে মুখর।

৩৭। রবীন্দ্রনাথ ঠাকুর বাংলা কত তারিখে জন্মগ্রহণ করেন?
উত্তর: ২৫ বৈশাখ।

৩৮। সুভা কখনো কখনো কিসের মতো চেয়ে থাকত?
উত্তর: সুভা কখসো কখসো অস্তমান চন্দ্রের মতো অনিমেষভাবে চেয়ে থাকত।

৩৯। সুভা নিয়মিত কয়বার গোয়ালে যেত?
উত্তর: তিনবার।

৪০। সুভা’ গল্পে কোন তিথির কথা উল্লেখ আছে?
উত্তর: শুক্লা দ্বাদশী।

৪১। সুভার কথা না থাকলেও কী ছিল?
উত্তর: সুভার কথা না থাকলেও সুদীর্ঘপল্লববিশিষ্ট বড় বড় দুটি কালো চোখ ছিল।

৪২। সুভার ওষ্ঠাধর কিসের মতো কেঁপে উঠত?
উত্তর: কচি কিশলয়ের মতো।

৪৩। প্রতাপ সুভার মর্যাদা বুঝত কেন?
উত্তর: ছিপ ফেলে মাছ ধরার সময় বাক্যহীন সঙ্গীই সর্বাপেক্ষা শ্রেষ্ঠ বলে প্রতাপ সুভার মর্যাদা বুঝত।

৪৪। সুভা কার কাছে মুক্তির আনন্দ পায়?
উত্তর: সুভা বিপুল নির্বাক প্রকৃতির কাছে মুক্তির আনন্দ পায়।

৪৫। । সুভার মা সুভাকে কীভাবে দেখতেন?
উত্তর : সুভার মা সুভাকে তার নিজের ত্রুটিম্বরূপ দেখতেন।

৪৬। মায়েরা মেয়েকে কিসের অংশরূপে দেখেন?
উত্তর : মায়েরা মেয়েকে নিজের অংশরূপে দেখেন।

৪৭।  ‘সুভা’ গল্পে একমাত্র কে সুভার মর্যাদা বুঝত?
উত্তর: ‘সুভা’ গল্পে একমাত্র প্রতাপ সুভার মর্যাদা বুঝত।

৪৮। সুভার মা সুভার প্রতি বিরক্ত ছিলেন কেন?
উত্তর: জন্ম থেকে সুভা কথা বলতে পারত না বলে সুভার মা তাকে নিজের গর্ভের কলঙ্ক জ্ঞান করে তার প্রতি বিরক্ত ছিলেন।

৪৯। ‘সুভা’ গল্পে কাকে অকর্মণ্য বলা হয়েছে?
উত্তর: ‘সুভা’ গল্পে প্রতাপকে অকর্মণ্য বলা হয়েছে।

৫০। প্রতাপের প্রধান শখ কী?
উত্তর: প্রতাপের প্রধান শখ ছিপ ফেলে মাছ ধরা।

সুভা গল্পের সাধারণ প্রশ্ন উত্তর

৫১।  সুভা জলকুমারী হলে কী করত?
উত্তর: সুভা জলকুমারী হলে আস্তে আস্তে জল থেকে উঠে সাপের মাথায় মণি ঘাটে রেখে যেত।

৫২। ‘গোরা’ কোন শ্রেণির রচনা?
উত্তর: ‘গোরা’ উপন্যাস শ্রেণির রচনা।

৫৩। ছােট মেয়েটার নাম সুভাষিণী রাখা হয়েছিল কেন?
উত্তর : বড় দুই বােনের নামের সাথে মিলের অনুরােধে ছোট মেয়েটির নাম সুভাষিণী রাখা হয়েছিল।

৫৪। । সুভাষিণীকে সবাই সংক্ষেপে কী নামে ডাকত?
উত্তর : সুভাষিণীকে সবাই সংক্ষেপে ‘সুভা’ নামে ডাকত।

৫৫। কিশলয়’ অর্থ কী?
উত্তর: ‘কিশলয়’ অর্থ গাছের নতুন পাতা।

৫৬। মেয়ের কোনাে ত্রুটি থাকলে মায়েরা তা কীভাবে দেখেন?
উত্তর : মেয়ের কোনাে ত্রুটি থাকলে মায়েরা নিজের জুটি হিসেবে দেখেন।

৫৭। সুভা দুই বাহুতে কাকে ধরে রাখতে চায়?
উত্তর: সুভা দুই বাহুতে প্রকাণ্ড মূক মানবতাকে ধরে রাখতে চায়।

৫৮। বাণীকন্ঠের বড় মেয়ে দুটির বিয়ে কীভাবে হয়েছে?
উত্তর : দস্তুরমতাে অনুসন্ধান ও অর্থব্যয়ে বাণীকন্ঠের বড় মেয়ে দুটির বিয়ে হয়েছে।

৫৯। সুভা সবসময় কোন চেষ্টা করত?
উত্তর : সুভা সবসময় নিজেকে সবার কাছ থেকে গােপন করার চেষ্টা করত।

৬০। সুভা কী মনে করত?
উত্তর : সুভা মনে করত তাকে সবাই ভুলে গেলে সে বাঁচে।

৬১। ছােট মেয়েটি পিতা-মাতার কোন অনুভূতির মতাে বিরাজ করছিল?
উত্তর : ছােট মেয়েটি পিতা-মাতার নীরব হৃদয়ভারের মতাে বিরাজ করছিল।

৬২। সুভা কথা না বলতে পারলেও কী করতে পারত?
উত্তর : সুভা কথা না বলতে পারলেও অনুভব করতে পারত।

শেষ কথা

আশা করছি এই পোস্ট টি আপনাদের ভালো লেগেছে এবং এখান থেকে সুভা গল্পের জ্ঞানমূলক প্রশ্ন সংগ্রহ করতে পেরেছেন। এই রকম আরও ভালো ভালো পোস্ট পেতে আমাদের সাথেই থাকবেন। এস এস সি শিক্ষা সংক্রান্ত আরও পোস্ট এই ওয়েবসাইটে দেওয়া আছে। পোস্ট টি পড়ার জন্য অনেক ধন্যবাদ।

আরও দেখুনঃ

ফুলের বিবাহ- বঙ্কিমচন্দ্র চট্টোপাধ্যায়। বাংলা ১ম পত্র পিডিএফ

সুভা গল্প এস এস সি বাংলা ১ম পত্র গদ্য- পিডিএফ সংগ্রহ

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *