অনলাইনে মোটরসাইকেল এর ইন্সুরেন্স করার নিয়ম ও ফি

আসসালামুআলাইকুম বন্ধুরা,  আজকে আপনাদের জন্য অনেক অনেক গুরুত্বপূর্ণ একটি পোস্ট নিয়ে হাজির হলাম।  আপনারা  যারা  বাইক নিয়ে চলাচল করে থাকেন তাদের জন্য এই পোস্টটি অত্যন্ত গুরুত্বপূর্ণ হবে।  আজ আমরা বাইক  এর ইন্সুরান্স নিয়ে আলোচনা করব। আপনি জেনে খুশি হবেন যে বাংলাদেশে প্রথমবারের মতো লিটন ইন্স্যুরেন্স কোম্পানি সকল বাইকারদের জন্য অনলাইনের মাধ্যমে বাইকের ইন্সুরেন্স করতে পারবে।

 তাই আপনি যদি ঘরে বসে আপনার বাইকের ইন্সুরেন্স করতে চান তাহলে লিটল ইন্স্যুরেন্স কোম্পানি লিমিটেড এর মাধ্যমে তা করতে পারবেন।  এখন আমরা জানবো বাংলাদেশের বাইক ইন্সুরেন্স করতে কত টাকা লাগে এবং অনলাইনে কিভাবে বাইকের রেজিস্ট্রেশন বা ইন্সুরেন্স করতে পারবেন

বাইক ইন্সুরেন্স বা মোটরসাইকেল বীমা

সকল বাইকারদের জন্য মোটরসাইকেলের ইন্সুরেন্স থাকা অত্যন্ত আবশ্যক।  কারণ কোন দুর্ঘটনাজনিত কারণে আপনার মোটরসাইকেল ক্ষতিগ্রস্ত হলে সেক্ষেত্রে আপনি বাংলাদেশ সরকারের পক্ষ হতে ক্ষতিপূরণ চেয়ে থাকবেন।  এ ছাড়াও আরও বেশ কিছু সুযোগ-সুবিধা আপনি পাবেন।  দয়া করে নিচের তথ্যগুলো পড়ুন। 

উপধারা ১ এ বলা হয়েছে, কোনো মোটরযান মালিক বা প্রতিষ্ঠান ইচ্ছা করলে তার মালিকানায় থাকা যে কোনো মোটরযানের জন্য যে সংখ্যক যাত্রী পরিবহনের জন্য নির্দিষ্ট করা তাদের জীবন ও সম্পদের বীমা করতে পারবেন।

২ অনুযায়ী, মোটরযানের মালিক বা প্রতিষ্ঠান তাদের অধীনে পরিচালিত মোটরযানের জন্য নিয়ম অনুযায়ী বীমা করবেন এবং মোটরযানের ক্ষতি বা নষ্ট হওয়ার বিষয়টি বীমার আওতাভুক্ত থাকবে। বীমাকারী উপযুক্ত ক্ষতিপূরণ পাবেন।

উপধারা ৩ এ বলা হয়েছে, মোটরযান দুর্ঘটনায় পড়লে বা ক্ষতিগ্রস্ত হলে বা নষ্ট হলে ওই মোটরযানের জন্য ধারা ৫৩ অনুযায়ী গঠিত তহবিলের অধীনে গঠিত আর্থিক সহায়তা তহবিল থেকে কোনো ক্ষতিপূরণ দাবি করতে পারবেন না।

অনলাইনে মোটরসাইকেল এর ইন্সুরেন্স

বর্তমান অনলাইন যুগের আপনি যদি ঘরে বসে আপনার মোটরসাইকেলের ইন্সুরেন্স করতে চান তাহলে তা খুব সহজেই করতে পারবেন। আপনাকে আর সরাসরি ব্যাংকে গিয়ে দীর্ঘ লাইন অপেক্ষা করে মোটরসাইকেল ইন্সুরেন্স করার কোন প্রয়োজন নেই।  আমরা এখন আপনাদেরকে জানাবো আপনি কিভাবে অনলাইনে আপনার মোটরসাইকেলের ইন্সুরেন্স করতে পারবেন।  অনলাইন ইন্সুরেন্স করতে চাইলে নিচের ধাপগুলো অনুসরণ করুন।

অনলাইন ইনস্যুরেন্স করার পদ্ধতিঃ

  • প্রথমে ব্রাউজারে nitolinsurance.com ওপেন করতে হবে
  • তারপর ক্লিক করতে হবে online motor insurance
  • মোটরসাইকেলের সম্পূর্ন বিবরন দিতে হবে
  • তারপর পেমেন্ট মেথড সিলেক্ট করুন বিকাশ, মোবাইল ব্যাংকিং, ক্রেডিট কার্ড, ডেবিড কার্ড ইত্যাদি
  • তারা আপনাকে একটি কনফারমেশন মেসেজ পাঠাবে এবং আপনার ইমেইলে একটি কপি পাঠিয়ে দেয়া হবে
  • আর তিন কর্ম দিবসের মধ্যে কুরিয়ারের মাধ্যমে আপনার কাছে ইনসুরেন্সের কপি পৌছে যাবে

মোটরসাইকেল ইন্সুরেন্স করার নিয়ম

বাইকের ইন্সুরেন্স করার জন্য ইন্সুরেন্স অফিসে যেতে হবে আপনাকে। সেখানে যাওয়ার সময় আপনার সাথে বাইকের কাগজপত্র নিয়ে যেতে হবে। যদি ইন্সুরেন্স অফিস খুজেঁ না পান তাহলে বাইক বিক্রয় প্রতিষ্ঠানে যান তারা আপনাকে সাহায্য করবে। সেখান থেকে বাইকের ইন্সুরেন্স করতে পারবেন ।

এছাড়াও আপনি যদি বীমা অফিসে গিয়ে আপনার মোটরসাইকেল ইন্সুরেন্স করতে না চান।  তাহলে ঘরে  বসে আপনার মোটরসাইকেলের ইন্সুরেন্স করতে পারবেন।  অনলাইনে কিভাবে মোটরসাইকেলের ইন্সুরেন্স করবেন এ নিয়ে আমরা নিচের অংশের বিস্তারিত আলোচনা করেছি।

মোটরসাইকেল ইন্সুরেন্স ফি কত ২০২২

মোটরসাইকেলের ইঞ্জিন ক্যাপাসিটি ১০০ সিসি বা এর কম হলে পূর্বনির্ধারিত বিদ্যমান শুধু রেজিস্ট্রেশন ফি আগের চার হাজার ২০০ টাকার জায়গায় দুই হাজার টাকা হবে। আর তা ১০০ সিসির উপরে হলে পূর্বনির্ধারিত বিদ্যমান শুধু রেজিস্ট্রেশন ফি আগের ৫ হাজার ৬০০ টাকার জায়গায় তিন হাজার টাকা হবে।

উল্লেখ্য, বর্তমানে ১০০ সিসির মোটরসাইকেলের মূল নিবন্ধন ফি ৪২০০ টাকা। এর সঙ্গে সড়ক করসহ অন্যান্য খরচ মিলিয়ে দুই বছর মেয়াদের জন্য ১০ হাজার ৫৮৯ টাকা দিতে হয়। আর ১০০ সিসির বেশি ক্ষমতার মোটরসাইকেলের জন্য মূল নিবন্ধন ফি ৫৬০০ টাকা, অন্যান্য খরচ মিলিয়ে দিতে হয় ১৩ হাজার ৫৯০ টাকা।

মোটরসাইকেল ইন্সুরেন্স অনলাইন

আমরা লক্ষ্য করেছি যে অনেকেই জানতে চেয়েছেন যে কিভাবে অনলাইনের মাধ্যমে মোটরসাইকেলের ইন্সুরেন্স করা যায়।  তাই আমরা এখন আপনাদেরকে জানাবো কিভাবে আপনি অনলাইনে মোটরসাইকেলের ইন্সুরেন্স করতে পারবেন।  আপনি  নিচে দেখানো ধাপগুলো অনুসরণ করে অনলাইনের মাধ্যমে মোটরসাইকেলের ইন্সুরেন্স করতে পারবেন।

  • প্রথমে ব্রাউজারে nitolinsurance.com ওপেন করতে হবে
  • তারপর ক্লিক করতে হবে online motor insurance
  • মোটরসাইকেলের সম্পূর্ন বিবরন দিতে হবে
  • তারপর পেমেন্ট মেথড সিলেক্ট করুন বিকাশ, মোবাইল ব্যাংকিং, ক্রেডিট কার্ড, ডেবিড কার্ড ইত্যাদি
  • তারা আপনাকে একটি কনফারমেশন মেসেজ পাঠাবে এবং আপনার ইমেইলে একটি কপি পাঠিয়ে দেয়া হবে
  • আর তিন কর্ম দিবসের মধ্যে কুরিয়ারের মাধ্যমে আপনার কাছে ইনসুরেন্সের কপি পৌছে যাবে।

মোবাইল অ্যাপসের মাধ্যমে অনলাইনে মোটরসাইকেল এর ইন্সুরেন্স করার নিয়ম

আপনি যদি চান তাহলে Nitol Insurance অ্যাপ ডাউনলোড ডাউনলোড করে এই কাজটি করতে পারবেন। এর জন্য আপনাকে যা যা করতে হবেঃ

  •  প্রথমে গুগল প্লে স্টোরে গিয়ে নিটোল ইন্সিউরেন্স (Nitol Insurance) অ্যাপ ডাউনলোড করবেন।
  • অ্যাপ ওপেন হলে সেখান থেকে Bike Insurance অপশন সিলেক্ট Plan Name – Act Liability, Vehicle Type – Motor Cycle, Capacity CC ( আপনার বাইকের সিসি), Insurance Date (যেদিন আবেদন করবেন তার ৪/৫ দিন পরের তারিখ দিতে পারেন তাহলে মাঝের কয়েকদিন নষ্ট হবে না, এটা আমার ব্যক্তিগত অভিমত), Passenger – 1 সিলেক্ট করে Continue দিবেন।
  • এখানে আপনার যাবতীয় সব তথ্য সঠিকভাবে দিয়ে আবারো Continue দিবেন।
  • এখন আপনার পেমেন্ট অপশন সিলেক্ট করতে বলবে। চাইলে এখানেও বিকাশ সিলেক্ট করতে পারেন অথবা অন্যান্য অনেক অপশন আছে। সেখান থেকেও দিতে পারেন। অপশন সিলেক্ট করে Pay তে ক্লিক করলেই আপনার পেমেন্ট হবে।
  • ওরা আপনার কাছ থেকে ৭ দিনের সময় চেয়ে নেয়, কিন্তু ৩ থেকে ৪ দিনের মধ্যে আপনার মোটরসাইকেল ইন্সুরেন্স আপনার ঠিকানায় পৌছে দেয়।

Motorcycle Insurance – ইন্সুরেন্স থাকার সুবিধা কি?

আমরা অনেকেই এই চিন্তা করি যে মোটরসাইকেলের ইন্সুরেন্স শুধু মামলার হাত থেকে আমাদের বাচায়, এর চাইতে বেশি এটি কোন কাজেই আসে না। কিন্তু আপনার এই ধারনা সম্পূর্ন ভুল। কারন ইন্সুরেন্সের অনেক সুবিধা আছে। চলুন সেগুলো সম্পর্কে জেনে নেয়া যায়।

  • “Workmen’s compensation act 1923 & Fatal accident act 1855” সহ অন্যান্য সাধারণ আইনানুযায়ী বীমাকারীর অধীনস্ত ব্যক্তিকে দুর্ঘটনাজনিত ক্ষতিপূরণ প্রদান করতে হবে। যিনি মোটরসাইকেলের দেখাশোনা বা পরিচর্যার সাথে কোনভাবে যুক্ত আছে।
  • কর্মরত ড্রাইভার ব্যতীত বীমাকারী বা অন্য কোন পরিচিত প্যাসেঞ্জারকে দুর্ঘটনাজনিত ক্ষতিপূরণ প্রদান করতে হবে। যাদের বয়স ১৬ থেকে ৬৫ বছরের মধ্যে এর মধ্যে হতে হবে।
  • বীমাকারী ও কর্মরত ড্রাইভার ব্যতীত দ্বিতীয় কোন অপরিচিত প্যাসেঞ্জারকে দুর্ঘটনাজনিত ক্ষতিপূরণ প্রদান, যাদের বয়স ১৬ থেকে ৬৫ বছরের মধ্যে

এভাবে আপনি অনলাইনে মোটরসাইকেল ইন্সুরেন্স করে নিতে পারবেন। এর ফলে আপনার সময় ও বেঁচে যাবে আর কষ্টও কম হবে।

শেষ কথা

আশাকরি আমাদের আজকের মিটিং আপনাদের অনেক ভালো লেগেছে এবং এই পোস্ট থেকে আপনি অনলাইনে কিভাবে মোটরসাইকেলের ইন্সুরেন্স করতে হয় এবং ইন্সুরেন্স করতে কত টাকা লাগে সম্পর্কে বিস্তারিত জানতে পেরেছে।  আপনার  যদি মোটরসাইকেল ইন্সুরেন্স সম্পর্কে কোন প্রশ্ন থেকে থাকে তাহলে দয়া করে নিচের কমেন্ট বক্সে আপনার প্রশ্নটিই করবেন।  আপনার যদি এই পোস্ট টি ভালো লেগে থাকে তাহলে সবার সাথে শেয়ার করার অনুরোধ রইল।

আরও দেখুনঃ

Best Affordable Health Insurance Companies in 2022

Leave a Reply

Your email address will not be published.

%d bloggers like this: