চুল নিয়ে রোমান্টিক কবিতা ও উক্তি

চুল হচ্ছে সৌন্দর্যের প্রতীক।  বিশেষ করে চুল নারীদের একটি অন্যতম সৌন্দর্যের প্রতীক।  প্রত্যেক নারীই চুল পছন্দ করে থাকেন,  যে সকল নারীর চুল অসুন্দর একমাত্র তারাই জানে চুলের গুরুত্ব।  এজন্য নারীরা চুল নিয়ে কবিতা খুবই পছন্দ করে থাকে।  আপনার প্রয়োজন যদি আপনার উপর অনেক টাকা নিয়ে অবস্থায় থাকে তাহলে চট করে চুল নিয়ে একটি কবিতা শুনিয়ে দেন দেখবেন নিমিষেই আপনার সঙ্গিনী রাগ হয়ে যাবে।  আপনি যদি চুল নিয়ে রোমান্টিক কবিতা করতে চান তাহলে আমাদের পোস্ট টি ফলো করতে পারেন।  পোস্ট এর নিচের অংশে আমরা বাছাইকৃত কিছু চুল নিয়ে রোমান্টিক কবিতা এবং উক্তি তুলে ধরব।  আশা করি সকল কবিতা এবং উক্তিগুলো আপনার অনেক পছন্দ হবে।

চুল নিয়ে রোমান্টিক কবিতা

কবিতা কে না ভালোবাসে,  এবং সেটি যদি হয় সৌন্দর্যবর্ধন নিয়ে।  আপনার সঙ্গিনী আপনার উপর ভীষণ রাগ করে আছে?  চট করে তাকে একটি রোমান্টিক কবিতা শুনিয়ে দিন দেখবেন তারা দূর হয়ে যাবে।  এরকম রাগ দূর করার জন্য কিছু কিছু রোমান্টিক কবিতা রয়েছে।  আপনি চাইলে আপনার সঙ্গিনীর চুলের প্রশংসা করে তাকে চুল নিয়ে কিছু রোমান্টিক কবিতা শোনাতে পারেন দেখবেন নিমিষেই তার মন ভালো হয়ে যাবে।  এই সকল কবিতা গুলো নিচে পাবেন।

কবিতা

ভালোবাসার পূর্ণতা
লিখেছেনঃ সাকিসেফ উম্মে ফাতেমা

ভালোবাসা কি বয়স মানে?
কিংবা প্রতিবন্ধকতা?
ভালোবাসা ভালোবাসতে জানে;
কিসের এতো জড়তা?

সময়ের সাথে বাড়লে বয়স,
কমবে প্রেম কে বলেছে?
বৃদ্ধ বেলায়- কথা সরস;
আদিখ্যেতা! কে জেনেছে?

পাকা চুলেও হয় যে খোপা; বেনির গাথুনি-
পাঞ্জাবিতেও লুকনো যায় গাজরা, ফুলের রানী।
ঘামের বিন্দু মুছে আজও বিবর্ণ আচল,
শখ করে আনাও যায় আলতা আর কাজল।

বৃদ্ধ বুকে শ্রান্তি খুজে, বৃদ্ধার আলিঙ্গন,
দুজনেই নীড় খুজে পাই, ছাপিয়ে সকল মহারন।
যুবককালে কদমে কদম যেমন রাখা যায়,
বাড়লে বয়স কদমরা সব ঠিকানা খুজে পায়।

দেহ-মনের সৌন্দর্য সব বয়সে বাড়ে,
অনুভূতির পরিপক্বতা হৃদয় জুড়ে-
ভালোবাসা নেই যে বয়স, নেই যে জড়তা
খাটি ভালোবাসায় মেলে সকল পূর্নতা।

ভালোবাসার রোমান্টিক কবিতা সংগ্রহ ২০২১

কবিতা

কথা আছে
     – সুনীল গঙ্গোপাধ্যায়

বহুক্ষণ মুখোমুখি চুপচাপ, একবার চোখ তুলে সেতু
আবার আলাদা দৃষ্টি, টেবিলে রয়েছে শুয়ে
পুরোনো পত্রিকা
প্যান্টের নিচে চটি, ওপাশে শাড়ির পাড়ে
দুটি পা-ই ঢাকা
এপাশে বোতাম খোলা বুক, একদিন না-কামানো দাড়ি
ওপাশে এলো খোঁপা, ব্লাউজের নীচে কিছু
মসৃণ নগ্নতা
বাইরে পায়ের শব্দ, দূরে কাছে কারা যায়
কারা ফিরে আসে
বাতাস আসেনি আজ, রোদ গেছে বিদেশ ভ্রমণে।
আপাতত প্রকৃতির অনুকারী ওরা দুই মানুষ-মানুষী
দু‘খানি চেয়ারে স্তব্ধ, একজন জ্বলে সিগারেট
অন্যজন ঠোঁটে থেকে হাসিটুকু মুছেও মোছে না
আঙুলে চিকচিকে আংটি, চুলের কিনারে একটু ঘুম
ফের চোখ তুলে কিছু স্তব্ধতার বিনিময়,
সময় ভিখারী হয়ে ঘোরে
অথচ সময়ই জানে, কথা আছে, ঢের কথা আছে।
কবিতা

 তুই কি আমার দুঃখ হবি 
  – আনিসুল হক

তুই কি আমার দুঃখ হবি?
এই আমি এক উড়নচন্ডী আউলা বাউল
রুখো চুলে পথের ধুলো
চোখের নীচে কালো ছায়া।
সেইখানে তুই রাত বিরেতে স্পর্শ দিবি।
তুই কি আমার দুঃখ হবি?

তুই কি আমার শুষ্ক চোখে অশ্রু হবি?
মধ্যরাতে বেজে ওঠা টেলিফোনের ধ্বনি হবি?
তুই কি আমার খাঁ খাঁ দুপুর
নির্জনতা ভেঙে দিয়ে
ডাকপিয়নের নিষ্ঠ হাতে
ক্রমাগত নড়তে থাকা দরজাময় কড়া হবি?
একটি নীলাভ এনভেলাপে পুরে রাখা
কেমন যেন বিষাদ হবি।

তুই কি আমার শুন্য বুকে
দীর্ঘশ্বাসের বকুল হবি?
নরম হাতের ছোঁয়া হবি?
একটুখানি কষ্ট দিবি।
নিজের ঠোট কামড়ে ধরা রোদন হবি?
একটুখানি কষ্ট দিবি।
প্রতীক্ষার এই দীর্ঘ হলুদ বিকেল বেলায়
কথা দিয়েও না রাখা এক কথা হবি?
একটুখানি কষ্ট দিবি।

তুই কি একা আমার হবি?
তুই কি আমার একান্ত এক দুঃখ হবি?

কবিতা

   তোকে নিয়ে এলোমেলো 
  – হাবীব কাশফ

নিঃসঙ্গতার সাথে সখ্য গড়েছিলাম ভালোই,
তারপর…

চোখে মোটা গ্লাসের চশমা
রুক্ষ চুলের লুকোচুরি
আর তার বন্য হাসির উচ্ছলতা,
ভেবেছিলাম তোকে নিয়ে লিখবো কবিতা,
এলোমেলো বন্য কবিতা।

আগুনঝরা ফাগুনে ঝাপসা চোখে
বাসন্তি শাড়ি জড়িয়ে খুজেছিলি আমাকে
হাজারো ভীড়ের মাঝে,
রঙ্গিন বৈশাখের তপ্ত রৌদ্দুরের নিঃস্বঙ্গতায়
হারিয়ে ফেলেছি তোকে
হাজারো রঙের ভীড়ে,
ভেবেছিলাম তোকে নিয়ে লিখবো আরো একটি কবিতা
এলোমেলো রঙ্গিন কবিতা।

তোর আঙ্গুলের ফাঁকে আঙ্গুল জড়িয়ে
ইচ্ছে ছিলো কাটাবো কতো অলস দুপুর,
তুই চেয়েরবি আমার চোখে
মোটা গ্লাসের চশমার ফাকে,
ভেবেছিলাম তোকে নিয়ে লিখবো একটি কবিতা
এলোমেলো অলস দুপুরের কবিতা।

একটি বর্ষা পেরিয়ে যায়
অঝোর বর্ষনে বিষন্নতার চাদর হয়ে,
শরতের স্নিগ্ধ বিকেলে
হাটবো কি দুজন আবারো একই ধারে?

অচেনা পথের ধুলো মাড়িয়ে
আঙ্গুলের ফাকে আঙ্গুল জড়িয়ে,
সেই মোটা গ্লাসের চশমা চোখে
পাড় হবে কতো শত গোধূলী বেলা।
ভেবেছিলাম তোকে নিয়ে লিখবো গোধুলি মাখা একটি কবিতা,

ভালোবাসার রোমান্টিক কবিতা সংগ্রহ ২০২১

কবিতা

 ভালোবাসি, ভালোবাসি
  – সুনীল গঙ্গোপাধ্যায়

ধরো কাল তোমার পরীক্ষা,
রাত জেগে পড়ার
টেবিলে বসে আছ,
ঘুম আসছে না তোমার
হঠাত করে ভয়ার্ত কন্ঠে উঠে আমি বললাম-
ভালবাসো?
তুমি কি রাগ করবে?
নাকি উঠে এসে জড়িয়ে ধরে বলবে,
ভালোবাসি, ভালোবাসি…..

ধরো ক্লান্ত তুমি,
অফিস থেকে সবে ফিরেছ,
ক্ষুধার্ত তৃষ্ণার্ত পীড়িত,
খাওয়ার টেবিলে কিছুই তৈরি নেই,
রান্নাঘর থেকে বেরিয়ে
ঘর্মাক্ত আমি তোমার
হাত ধরে যদি বলি- ভালবাসো?
তুমি কি বিরক্ত হবে?
নাকি আমার হাতে আরেকটু চাপ দিয়ে বলবে,
ভালোবাসি, ভালোবাসি…..

ধরো দুজনে শুয়ে আছি পাশাপাশি,
সবেমাত্র ঘুমিয়েছ তুমি
দুঃস্বপ্ন দেখে আমি জেগে উঠলাম
শতব্যস্ত হয়ে তোমাকে ডাক দিয়ে যদি বলি-ভালবাসো?
তুমি কি পাশ ফিরে শুয়ে থাকবে?
নাকি হেসে উঠে বলবে,
ভালোবাসি, ভালোবাসি…..

ধরো রাস্তা দিয়ে হেঁটে যাচ্ছি দুজনে,
মাথার উপর তপ্ত রোদ,
বাহন পাওয়া যাচ্ছেনা এমন সময়
হঠাত দাঁড়িয়ে পথ
রোধ করে যদি বলি-ভালবাসো?
তুমি কি হাত সরিয়ে দেবে?
নাকি রাস্তার সবার
দিকে তাকিয়ে
কাঁধে হাত দিয়ে বলবে,
ভালোবাসি, ভালোবাসি…..

বাংলা রোমান্টিক কবিতা সংগ্রহ ২০২১

ধরো শেভ করছ তুমি,
গাল কেটে রক্ত পড়ছে,
এমন সময় তোমার এক ফোঁটা রক্ত হাতে নিয়ে যদি বলি- ভালবাসো?
তুমি কি বকা দেবে?
নাকি জড়িয়ে তোমার গালের রক্ত আমার
গালে লাগিয়ে দিয়ে খুশিয়াল গলায় বলবে,
ভালোবাসি, ভালোবাসি…..

ধরো খুব অসুস্থ তুমি,
জ্বরে কপাল পুড়েযায়,
মুখে নেই রুচি,
নেই কথা বলার অনুভুতি,
এমন সময় মাথায় পানি দিতে দিতে তোমার মুখের
দিকে তাকিয়ে যদি বলি-ভালবাসো?
তুমি কি চুপ করে থাকবে?
নাকি তোমার গরম শ্বাস আমার শ্বাসে বইয়ে দিয়ে বলবে,
ভালোবাসি, ভালোবাসি..

ধরো যুদ্ধের দামামা বাজছে ঘরে ঘরে,
প্রচন্ড যুদ্ধে তুমিও অংশীদার,
শত্রুবাহিনী ঘিরে ফেলেছে ঘর
এমন সময় পাশে বসে পাগলিনী আমি তোমায়
জিজ্ঞেস করলাম-
ভালবাসো?
ক্রুদ্ধস্বরে তুমি কি বলবে যাও….
নাকি চিন্তিত আমায় আশ্বাস দেবে, বলবে,
ভালোবাসি, ভালোবাসি…….

ধরো দূরে কোথাও যাচ্ছ
তুমি,
দেরি হয়ে যাচ্ছে,বেরুতে যাবে,
হঠাত বাধা দিয়ে বললাম-ভালবাসো?
কটাক্ষ করবে?
নাকি সুটকেস ফেলে চুলে হাত বুলাতে বুলাতে বলবে,
ভালোবাসি, ভালোবাসি

ধরো প্রচন্ড ঝড়,উড়ে গেছে ঘরবাড়ি,
আশ্রয় নেই
বিধাতার দান এই পৃথিবীতে,
বাস করছি দুজনে চিন্তিত তুমি
এমন সময় তোমার
বুকে মাথা রেখে যদি বলি ভালবাসো?
তুমি কি সরিয়ে দেবে?
নাকি আমার মাথায় হাত রেখে বলবে,
ভালোবাসি, ভালোবাসি..

ধরো সব ছেড়ে চলে গেছ কত দুরে,
আড়াই হাত মাটির নিচে শুয়ে আছ
হতভম্ব আমি যদি চিতকার করে বলি-
ভালবাসো?
চুপ করে থাকবে?
নাকি সেখান থেকেই
আমাকে বলবে,
ভালোবাসি, ভালোবাসি…..

যেখানেই যাও,যেভাবেই থাক,
না থাকলেও দূর
থেকে ধ্বনি তুলো,
ভালোবাসি, ভালোবাসি, ভালোবাসি..

দূর থেকে শুনব তোমার কন্ঠস্বর,
বুঝব তুমি আছ, তুমি আছ
ভালোবাসি,ভালোবাসি……..!

কবিতা

তোমার ভেজা চুলের গন্ধ
আর মুখে মিষ্টি হাঁসি একরাশ
এমনি করেই জমে উঠুক
আমার প্রতিটি সকালের প্রাত:রাশ “।

বাংলা রোমান্টিক কবিতা সংগ্রহ ২০২১

কবিতা

খোলা চুলে অগোছালো
রয়েছে অবাধ স্বাধীনতারায় !
হাসিতে পড়ছে ঝোড়ো জোৎস্নার আলো
সেই আলো আজ মন হারানোর পথ দেখায় !
গোলাপের মতো ঠোঁট ,
মনোমুগ্ধকর উঠেছে মেতে
স্নিগধ চাহনির ভাসমান স্রোতে
স্বপ্ন বাস্তব সব এলোমেলো হয়ে যায় “।

কবিতা

বালিকা তুই ভুল করিয়া
খুলিসনে তোর চুল
না হয় আমি নয়ন জুড়িয়ে
করতে পারি ভুল
নয়ন জুড়ানো রেশমি চুলে
হৃদয় ছুঁয়ে যায়
আদর করে দিবো তোকে
আমার স্বপ্নে আয়“।

কবিতা

তোমাকে দেখেছি পথের ধারে
খোলা চুলে অপরূপ তোমার মুগ্ধতা
তোমাকে দেখেছি কলেজের বারান্দায়
সহস্র শতাব্দীর অসীম মুগ্ধতায় “।

কবিতা

ছোট খুকীর বায়না

         চুল ছাড়া দিন যায় না

থাকতে হলে এই যে ঘরে

      চুল থাকা চাই মাথা ভরে।

 শাড়ি চুড়ি গয়না

        এসব খুকির চাইনা

 দিতে হবে মাথা ভরে

       বাধব সে চুল বেনী করে

 কতদিন হল রাগ করে

           খুকি কিছু খায় না,

 দিতে হবে মাথা ভরে

         পর চুল চাই না।

বাংলা রোমান্টিক কবিতা সংগ্রহ ২০২১

কবিতা

বালিকা তুই ভুল করিয়া

খুলিসনে তোর চুল

না হয় আমি নয়ন জুড়িয়ে

করতে পারি ভুল

নয়ন জুড়ানো রেশমি চুলে

হৃদয় ছুঁয়ে যায়

আদর করে দিবো তোকে

আমার স্বপ্নে আয়“।

কবিতা

তোমাকে দেখেছি পথের ধারে

খোলা চুলে অপরূপ তোমার মুগ্ধতা

তোমাকে দেখেছি কলেজের বারান্দায়

সহস্র শতাব্দীর অসীম মুগ্ধতায় ।

কবিতা

যেদিন তোমায় দেখেছিলাম খোলা চুলে পথের ধারে

                সেদিন হতে ঘুম আসে না তোমায় শুধু মনে পড়ে।

 আকাশের ঐ চাঁদটা দেখি মনে হয় তোমায় দেখি

               তোমার রূপের জোসনা যেন সারা হৃদয় গায়ে মাখি।

 বাতাস থেকে যখন আমি গন্ধ নেই হৃদয় ভরে

               খোলা চুলের গন্ধ যেন ছড়িয়ে থাকে বাতাস জুড়ে,

 মেঘলা দিনে আকাশ থেকে মুষলধারে বৃষ্টি ঝরে,

            আমি দেখি এই বৃষ্টির জন্য তোমার চুল থেকে ঝরে পড়ে।

হুমায়ূন আহমেদ এর রোমান্টিক কবিতা ২০২১

কবিতা

খোলা চুলে অগোছালো

                  রয়েছে অবাধ স্বাধীনতারায় !

হাসিতে পড়ছে ঝোড়ো জোৎস্নার আলো

                    সেই আলো আজ মন হারানোর পথ দেখায় !

গোলাপের মতো ঠোঁট ,

                মনোমুগ্ধকর উঠেছে মেতে

স্নিগধ চাহনির ভাসমান স্রোতে

                 স্বপ্ন বাস্তব সব এলোমেলো হয়ে যায় ।

চুল নিয়ে রোমান্টিক উক্তি

অনেকেই চুল নিয়ে রোমান্টিক উক্তি পছন্দ করে থাকেন।  তাই অনেকজন ইন্টারনেটে এসকল রোমান্টিক উক্তি খুঁজে থাকেন।  তাই আপনাদের সুবিধার্থে আমরা এখন আপনাদের জন্য কিছু বাছাইকৃত চুল নিয়ে রোমান্টিক উক্তি শেয়ার করব।

উক্তি ১:
হারানোর জন্য
তোমার খোলা চুল এবং চোখের কাজল যথেষ্ট”
উক্তি ২:

কোনো এক পড়ন্ত বিকেলে বারান্দায় দাঁড়িয়ে
রেশমি কালো চুলের ঢেউ মুগ্ধ করে আমাকে “।

উক্তি ৩:

খুলে দাও তুমি এই চুলের বাঁধন
অবাধ্য হয়ে না হয় সে বাতাসেই উড়ুক “।

উক্তি :৪
“ইচ্ছে হয় হাড়িয়ে যাই
ওই খোলা চুলের গভীরতায়”।

উক্তিঃ৫

খোলা চুল তুমি বলে দাও
কেনো মুগ্ধ না হবে কেউ তোমার মায়ায়”।

হুমায়ূন আহমেদ এর রোমান্টিক কবিতা ২০২১

শেষ কথা

সম্পূর্ণ পোস্টটি পড়ার জন্য আপনাকে অসংখ্য ধন্যবাদ।  আশা করি আজকের পোস্ট এর মাধ্যমে আপনারা চুল নিয়ে রোমান্টিক কবিতা এবং চুল নিয়ে রোমান্টিক উক্তি গুলো খুবই ভালো লেগেছে.  আপনি চাইলে আপনার সঙ্গিনীকে এসকল রোমান্টিক কবিতা উক্তি শোনাতে পারেন অথবা তাকে টেক্সট মেসেজ আকারে পাঠিয়ে দিতে পারেন।  আশাকরি আপনার সঙ্গে নিয়ে সকল কবিতা গুলো খুবই পছন্দ করবে।  আপনার যদি এরকম কবিতা আরো পছন্দ হয়ে থাকে তাহলে দয়া করে আমাদের সাথেই থাকবেন আমরা ভবিষ্যতে আপনাদের জন্য আরো এরকম কবিতা ও উক্তি নিয়ে হাজির হব। ধন্যবাদ।

আরও দেখুনঃ

ভালোবাসার রোমান্টিক কবিতা সংগ্রহ ২০২১

হুমায়ূন আহমেদ এর রোমান্টিক কবিতা ২০২১

বাংলা রোমান্টিক কবিতা সংগ্রহ ২০২১

Leave a Reply

Your email address will not be published.

%d bloggers like this: