(স্বাধীনতা দিবস) ২৬ শে মার্চ এর বক্তব্য ও ভাষণ

26 শে মার্চ, বাংলাদেশ সকল নাগরিক দের জন্য অত্যন্ত গুরুত্বপূর্ণ এবং মহামান্বিত দিন।  অনেক দুঃখ বেদনা ও কষ্ট সহ্য করার পর ১৯৭১ সালের আজকের এই দিনে অর্থাৎ 26 শে মার্চ পূর্ব পাকিস্তান পশ্চিম পাকিস্তানের বিরুদ্ধে যুদ্ধ ঘোষণা করে।  দীর্ঘ নয় মাস রক্তক্ষয়ী লাখো শহীদ রক্তের  বিনিময়ে আমরা আজকের স্বাধীনতা অর্জন করতে পেরেছি।  স্বাধীনতা দিবস উপলক্ষে প্রতিবছর 26 শে মার্চ বিভিন্ন পত্রিকা ও অনুষ্ঠানের আয়োজন করা হয়ে থাকে।

আমরা সকল স্বাধীনতা শহীদদের আত্মার মাগফেরাত কামনা করে তাদের জন্য দোয়া করি থাকি এই বিশেষ দিনটিতে। এছাড়া অনলাইন যেমন টেলিভিশনে বিভিন্ন অনুষ্ঠান এবং সরাসরি বিভিন্ন জায়গায় মুক্তিযোদ্ধা বিষয়ক অনুষ্ঠান আয়োজন করা হয়ে থাকে।

তাই আজকে এই পোস্টে  ২৬ শে মার্চ এর বক্তব্য আপনাদের সাথে শেয়ার করেছি। আপনি যদি ইন্টারনেটে স্বাধীনতা দিবসের ভাষণ করে থাকেন, তাহলে এখানে তা সংগ্রহ করতে পারবে।  এছাড়াও  আমরা অনেক সুন্দর একটি স্বাধীনতা দিবসের কবিতা আপনাদের জন্য সংগ্রাম করেছে যা এখানে পাবেন।

২৬ শে মার্চ এর বক্তব্য

আজকে মহান স্বাধীনতা দিবস। ১৯৭১ সালের আজকের এই দিনে বাংলাদেশ পাকিস্তানের বিরুদ্ধে যুদ্দ ঘোষণা করে এবং ৯ মাস রক্ত ক্ষয়ী যুদ্দের পর বাংলাদেশ বিজয় লাভ করে। এর পর থেকে প্রতি বছর ২৬ শে মার্চ বাংলাদেশে স্বাধীনতা দিবস পালিত হয়। আজকে ২৬ শে মার্চ স্বাধীনতা দিবস উপলক্ষে অনেক প্রোগ্রাম এর আয়োজন হয়ে থাকে। অনেকেই অনুষ্ঠানে ২৬ শে মার্চ স্বাধীনতা দিবস উপলক্ষে ভাষণ দিয়ে থাকে। তাই আমরা এখানে আপনাদের জন্য স্বাধীনতা দিবসের ভাষণের একটি উদাহরন শেয়ার করলাম।

“বিসমিল্লাহির রাহমানির রাহিম । উপস্থিত ২৬ শে মার্চ মহান স্বাধীনতা দিবস উপলক্ষে অত্র প্রতিষ্ঠান কর্তিক আয়োজিত আজকের অনুষ্ঠানে উপস্থিত সম্মানিত সভাপতি , প্রধান অতিথি , বিশেষ অতিথি , শ্রদ্ধেয় শিক্ষক বৃন্দ , ছাত্র – ছাত্রী বৃন্দ সবার প্রতি আমার সালাম ও শুভেচ্ছা আসসালামু আলাইকুম ।

আজ ২৬ শে মার্চ , মহান স্বাধীনতা দিবস । ১৯৭১ সালের এই দিনে বাংলার পূর্ব আকাশে রক্ত লাল হয়ে উদিত হয়েছিল একটি নতুন সূর্য ,বাংলার আকাশে উড়েছিল লাল – সবুজের পতাকা । বিশ্বের বুকে জন্ম নিয়েছিল বাংলাদেশ নামক নতুন একটি দেশ ।

স্বাধীনতা তুমি ফুলের সুবাস কোকিলের কুহুতান তোমায় আনতে দিয়েছি মোরা ৩০ লক্ষ পরাণ।

আমরা কিভাবে আমাদের প্রিয় স্বাধীনতা পেলাম সেই সম্পর্কে কিছু কথা না বললেই নয় ।

আমি আমার বক্তব্যের শুরুতে গভীর শ্রদ্ধার সাথে স্মরণ করছি হাজার বছরের শ্রেষ্ঠ বাঙালি স্বাধীনতার মহান স্থপতি , জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানকে ।

সাথে সাথে আরও স্মরণ করছি বাংলার সন্তানদেরকে । যারা স্বাধীনতার যুদ্ধে জীবন দিয়ে আমাদেরকে উপহার দিয়েছিলেন । একটি ভূখণ্ড একটি দেশ যার নাম বাংলাদেশ ।

বাংলাদেশ ভারত পাকিস্তান ছিল একটি রাষ্ট্র , যার নাম ছিল পাক – ভারত । ১৯৪৭ সালের ১৫ ই আগস্ট ভারত আলাদা রাষ্ট্র হওয়ার পর ।

আজকের বাংলাদেশকে বলা হতো পূর্ব পাকিস্তান । আর বর্তমান পাকিস্তানকে বলা হতো পশ্চিম পাকিস্তান।

পাকিস্তান রাষ্ট্র পরিচালনার ক্ষমতা পশ্চিম পাকিস্তানীদের হাতে থাকায় পূর্ব পাকিস্তানের লোকজন মানে আমরা কোন অধিকার পারছিলাম না ।

তারপর থেকেই পূর্ব – পাকিস্তানের সাথে পশ্চিম পাকিস্তানিদের যুদ্ধের সূচনা শুরু হয় ।

পরবর্তীতে ১৯৫২ সালে আমার দেশের সোনার ছেলেরা মাতৃভাষা ছিনিয়ে আনে উর্দু ভাষার পরিবর্তে ঐ পাকিস্তানি হানাদার বাহিনীদের কাছ থেকে।

তারপর থেকেই পাকিস্তানের গটফাদার জুলফিকার আলী ভুট্টো , ইয়াহিয়া খান , মোহাম্মদ আলী জিন্নাহ , টিক্কা খান , বাঙ্গালীদের জন্য নানান প্রকার ষড়যন্ত্রের জাল বুনতে থাকেন।”

স্বাধীনতা দিবসের কবিতা

অনেকেই আজকে 26 শে মার্চ মহান স্বাধীনতা দিবস উপলক্ষে স্বাধীনতা দিবসের কবিতা খুঁজতেছেন।  খুজতেছেন তাই আজকের পোস্টে আমরা একটি সুন্দর স্বাধীনতা দিবসের কবিতা সংগ্রহ করেছে। আজকের স্বাধীনতা নিয়ে এই কবিতাটি লিখেছেন লিখেছেনঃ – মু. ইয়াসিন আরাফাত “জিহান” নবাগত দশম শ্রেণী অধ্যয়নরত শিক্ষার্থী হাসন্দী উচ্চ বিদ্যালয় সদর লক্ষীপুর।

তোমাকে পাবার জন্য হে স্বাধীনতা” দিয়েছি কত প্রাণ।

তোমায় পেয়ে হলাম ধন্য স্মৃতিটুকু হবে নাকো ম্লান।

তোমাকে পেয়ে আত্নহারা হলো বাঙালী জাতি।

বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিব ছিলেন মোদের অন্ধকারের বাতি।

তোমায় পেয়ে হয়েছি আমরা গর্বিত

দিলাম কথা আর কভু হবো নাকো ভিত।

তোমায় পেয়ে অহংকারী নয় আলোকিত বাঙালী জাতি

তোমায় পাবার জন্যে মোরা আনন্দে উঠেছিলাম মাতি।

পদ্মা মেঘ্না যমুনা আর শীতলক্ষার পাড়ে

নওজোয়ানদের হৈচৈ আর আর আবেগ শুধু বাড়ে

তোমায় নিয়ে গাঁথি মালা

তা হতে পাই কৃস্ন কালা।

“তোমায় পাবার জন্য হে স্বাধীনতা গরীব দুঃখি ভৃত্য বণিতা পড়েছে যুদ্ধে ঝাঁপিয়ে বাঙালী জাতি চলছে এখন সারা বিশ্ব দাপিয়ে।

স্বাধীনতা তুমি কৃষক শ্রমীক নওজোয়ানদের দান এই গর্বে এই প্রজন্ম হবে চির অনুপ্রাণ।

স্বাধীনতা দিবসের বাক্তব্য

আমরা দীর্ঘ নয় মাস যুদ্ধের পর আমরা স্বাধীনতা অর্জন করতে পেরেছি। তাই প্রতিবছর 26 শে মার্চ মহান স্বাধীনতা দিবস উপলক্ষে বিশেষ দিনে অনেকেই বিভিন্ন অনুষ্ঠানে স্বাধীনতা দিবসের বক্তব্য প্রদান করে থাকেন। এজন্য অনেকেই ইন্টারনেট এর সারসংক্ষেপ তথা ভাষণ সম্পর্কে ধারণা পেতে ইচ্ছা পোষণ করে থাকে। তাই আমরা ইতোমধ্যে আপনাদের সাথে স্বাধীনতা দিবসের 26 শে মার্চের ভাষণ বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান দিয়েছিলেন সেটা শেয়ার করেছি। আশা করি আপনি এর নমুনা সংগ্রহ করতে পেরেছেন।

শেষ কথা

আজকের ২৬ শে মার্চ এর বক্তব্য নিয়ে লিখিত সম্পূর্ণ পোস্টটি পড়ার জন্য আপনাকে অসংখ্য ধন্যবাদ। আজকের পোস্টের মাদ্ধমে আমরা ২৬ শে মার্চ স্বাধীনতা দিবস এর বক্তব্য ও ভাষণ শেয়ার করার চেষ্টা করেছে।  আশা করি আপনারা ইতিমধ্যে আমাদের পোস্ট হতে স্বাধীনতা দিবসের বক্তব্য  ও ভাষণ সংগ্রহ করতে পেরেছেন। াপ্নার যদি পোস্টটি ভাল লেগে থাকে তাহলে সকলের সাথে শেয়ার করার অনুরোধ রইল।

আরও দেখুনঃ

২৬ শে মার্চ এর উক্তি ও বাণী এবং ফেসবুক শুভেচ্ছা স্ট্যাটাস

২৬ মার্চ কি দিবস? স্বাধীনতা দিবস কেন পালন করা হয়, ইতিহাস

স্বাধীনতা দিবস নিয়ে স্ট্যাটাস ও শুভেচ্ছা মেসেজ

স্বাধীনতা দিবস নিয়ে সেরা কবিতা এবং কিছু কথা

Leave a Reply

Your email address will not be published.

%d bloggers like this: